উপজেলা সমূহের মৌজা ম্যাপের তালিকা ডাউনলোড করুন এখান থেকে

ভূমি উন্নয়ন কর পরিষদ বা খাজনা প্রদান করতে হলে আপনাকে অবশ্যই উপজেলার নাম এবং সেইসঙ্গে কোন মজার কোন দাগ নম্বরের আপনি কাজ না দিচ্ছেন সে সকল বিষয়ে আপনাকে অবগত করতে হবে। এ কারণে উপজেলার নামের সাথে সাথে আপনাকে মজার নামও দিতে হবে। আপনার জমি কোন মৌজায় অবস্থান সেটি অবশ্যই জানাতে হবে। একজন ব্যক্তির নাম ঠিকানা জানাতে হলে অবশ্যই গ্রামের নাম জানাতে হয় তেমনি ভাবে একটি জমি কোথায় অবস্থিত সেই জমিটি ঠিকানা দেওয়ার জন্য অবশ্যই মজা এবং দাগ নম্বর প্রয়োজন।

তাই ভূমির ক্ষেত্রে অবশ্যই মজা একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। কারণ আপনি মজার নাম না জানলে আপনার জমি ক্রয় বিক্রয় বা রেজিস্ট্রি কিছুই হবে না। শুধু ক্রয় বিক্রয় কেন জমির অন্যান্য অনলাইনে যে আবেদন করতে হবে অর্থাৎ আপনি যদি খতিয়ানের জন্য অথবা এই পথচার জন্য আবেদন করেন অথবা আপনি যদি জমির খাস না দিতে চান অনলাইনে তাহলে অবশ্যই আপনাকে জমির কোথায় অবস্থিত সে সংক্রান্ত তথ্যের মধ্যে অবশ্যই মজার নাম উল্লেখ করতে হবে।

মৌজা এবং দাগ নম্বর ছাড়া আপনি জমিজমার কোন বিষয় কিছুই করতে পারবেন না। সে কারণে অবশ্যই মজার বিশেষ গুরুত্ব রয়েছে বলেই বলা হচ্ছে। বাংলাদেশে ৬৪ টি জেলার অনেকগুলি উপজেলা রয়েছে সেই উপজেলা গুলির আবার অবশ্যই ইউনিয়ন এবং মৌজা এই ভাবে বিভক্ত হয়ে থাকে। এখন আমাদের যে এলাকায় বাস অর্থাৎ যে উপজেলা এবার সেই উপজেলার ইউনিয়ন গুলির বিভিন্ন মজা রয়েছে সে সকল মজার অবশ্যই মানচিত্র রয়েছে সে সকল মানচিত্র গুলি আমাদের প্রয়োজন হয়। তাই আপনারা যে উপজেলায় বাস করেন এবং যে ইউনিয়নে বাস করেন এবং যে ইউনিয়নের আপনার যে যে মজার জমি রয়েছে সে সকল মৌজার মানচিত্র আপনার কাছে থাকা প্রয়োজন।

কারণ ভূমি শাসন এর জন্য অবশ্যই মৌজা ম্যাপ আপনার জন্য প্রয়োজন। আপনার কোন মজায় কোন দাগ নম্বরে জমি সেগুলো বা এ সকল বিষয়গুলো আপনার অবশ্যই দেখার প্রয়োজন রয়েছে। তাই আজকে আপনারা যারা আমাদের এই পোস্টটিতে এসেছেন উপজেলা সমূহের মৌজা ম্যাপের জন্য আপনারা অবশ্যই তা পাবেন আমাদের এই পোস্ট থেকে। প্রথমে আমাদের দেখতে হবে যে মৌজা কি।

মজা হচ্ছে যে এলাকায় আপনার জমি অবস্থিত তার একটি নকশা বা ক্ষুদ্র ভূমি অঞ্চল। এই মজা সর্বপ্রথম মুঘল আমলে কোন পরগনা বা এলাকার রাজস্ব আদায়ের জন্য তারা এলাকাকে মৌজা হিসেবে বিভক্ত করেছিল। বর্তমানেও সরকারের সর্বনিম্ন রাজস্ব আদায়ের একক এলাকার হিসেবে ব্যবহৃত হয় মৌজা। মৌজা সাধারণত একটি গ্রামকেই বোঝানো হয়ে থাকে। জেলা বিভক্ত হয় উপজেলাতে উপজেলা বিভক্ত হয় বিভিন্ন মৌজাতে। এক্ষেত্রে বোঝানো যায় যে মৌজা বলতে সাধারণত গ্রামকে বোঝানো হয়ে থাকে।

আপনার জমির সকল তথ্য পাওয়ার জন্য প্রথমে আপনাকে জমিটি যে মৌজায় অবস্থিত রয়েছে তার নাম বলতে হবে বা সেটি শেয়ার করতে হবে আপনাকে। মৌজা বের করতে হলে বা মৌজা ম্যাপের মানচিত্র দেখতে হলে আপনাকে অবশ্যই বাংলাদেশ ভূমি মন্ত্রণালয়ের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে গিয়ে সর্বপ্রথম আপনাকে আপনার নিজের বিভাগ তারপর সে বিভাগের অন্তর্গত জেলা সমূহের মধ্যে সিলেক্ট করতে হবে আপনার নিজের জেলা এরপর নিজ উপজেলা নিজ উপজেলার পর আপনাকে সিলেট করতে হবে ইউনিয়ন তারপরেই সিলেক্ট করতে হবে মৌজা ক্লিক করলে আপনি আপনার মজার মানচিত্র দেখতে পাবেন।

সেই মানচিত্র আপনি যদি ডাউনলোড করে নেন তারপরে ডাউনলোড করে সেটাকে আপনি প্রিন্ট করে নিজের কাছে রেখে দিতে পারবেন। বর্তমান সেবায় আর কোন কিছুই আপনার হাতের মুঠোর বাইরে নেই। এই কারণে আপনি আপনার সকল তথ্যগুলি শেয়ার করার পর অবশ্যই আপনাকে আপনার প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দেওয়া হবে। তাই যমের যেকোনো বিষয়ে জানতে বুঝতে আপনাকে অবশ্যই বাংলাদেশ ভূমি মন্ত্রণালয়ের অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে হবে। অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে ঠিকানা আমরা বা ওয়েবসাইটের লিংক নিচে দিয়ে দেওয়া হলো।
https://eporcha.gov.bd/ ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে হবে।