খতিয়ান বের করার লিংক settlement.gov.bd khatian search

২০২২ সালের পহেলা অক্টোবরের থেকে এখন ভূমি অফিসের অনেক কাজকর্ম অনলাইনে করা যায়। কারণ গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের ভূমি মন্ত্রণালয় ২০২২ সালের ৩০ শে সেপ্টেম্বর এক যুগান্তকারী সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে। এই যুগান্তকারী সিদ্ধান্ত গ্রহণ করার প্রেক্ষিতে বাংলাদেশের ভূমি অফিসের অনেকগুলি সেবাসমূহ তারা ই- সেবার মধ্যে নিয়ে আসে। আর এই সেবা সমূহের মধ্যে বিভিন্ন ধরনের সেবাকুলের মধ্যে রয়েছে অনলাইনে খতিয়ান দেখার আবেদন খতিয়ানের আবেদন এই পর্যাচার আবেদন খাজনা প্রদান জমির দাগ নম্বর বাহির করা খতিয়ান বাহির করা ইত্যাদি অনেক ধরনের সেবা গুলি আছে। তাই এখন আর খতিয়ান বা পথ চাওয়া দাগ নম্বর এ সকল বিষয় গুলি দেখার জন্য ভূমি অফিসের দরজা দরজায় ঘুরে আসতে হবে না।

আপনি চাইলে আপনার নিজের ফোন থেকে ঘরে বসেই আবেদন করে এ সকল জিনিসগুলি দেখে নিতে পারেন। তাই আজকে যারা আমাদের এই পোস্টে এসেছেন যে খতিয়ান বের করার লিংক জানতে আপনারা অবশ্যই সেই বিষয়টি আমাদের এখান থেকে পেয়ে যাবেন। কারন আমরা আমাদের ওয়েবসাইটটিতে ভূমি সংক্রান্ত বিভিন্ন বিষয় নিয়ে কাজ করে। অর্থাৎ আপনাদের জমিজমা সংক্রান্ত যে বিষয়গুলিতে সমস্যা হয় সেসব বিষয়গুলি আপনারা আমাদের এখান থেকে দেখে নিতে পারবেন। এছাড়া অন্যান্য যে বিষয়গুলি রয়েছে সে বিষয়গুলি দেখার জন্য আপনাকে অবশ্যই আমাদের ওয়েবসাইটটি ভিজিট করতে হবে।

আমাদের ওয়েবসাইটে জমিজমা সংক্রান্ত নানা ধরনের বিষয়গুলি নিয়ে আমরা কাজ করে থাকি। তাই আপনি জমি-জমা সংক্রান্ত যে বিষয়গুলি আপনার মাথায় আসছে না বা আপনি বুঝতে পারছেন না সে সকল জিনিসগুলি যদি আমাদের ওয়েবসাইটে গিয়ে ভিজিট করে দেখে আসেন তাহলে অবশ্যই আপনার মাথায় পুরোপুরি খেলে যাবে। কারণ আমরা অত্যন্ত বিস্তারিতভাবে এ সকল জিনিসগুলো বুঝিয়ে থাকি। কারণ বর্তমানে বাংলাদেশের ভূমি অফিসগুলো ডিজিটাল। একটা সময় ছিল যখন আমাদের ভূমি সংক্রান্ত কোন কাগজপত্র হারিয়ে গেলে অথবা সেই কাগজপত্র আমরা পুনরায় আমাদের প্রয়োজন তখন ভূমি অফিসে বিভিন্ন টেবিলের ঘুরে ঘুরে আসতে হতো।

কখনো বাবার সে কাগজপত্র গুলো আমরা পেতাম আবার কখনো বা সেই কাগজপত্র ঘোরাঘুরির পরও পেতাম না। কিন্তু বর্তমানে সেই দিন আর নেই।এখন আপনারা চাইলেই আপনাদের ঘরে বসে আপনার নিজের ব্যবহারকৃত মোবাইল ফোনটি দিয়ে আপনি নিজে নিজেই আপনার জমি জমা সংক্রান্ত সকল বিষয়গুলি দেখে নিতে পারবেন এবং কোন কাজ অর্থাৎ কোন কাগজপত্র হারিয়ে গেলে সেটি আবেদনের মাধ্যমে আপনি ঘরে বসে থেকে তুলে নিতে পারবেন।

যদিও সেই সকলের জন্য সামান্য কিছু ফি আপনাকে লাগতে পারে। তাই আমাদের জমি জমার সকল বিষয় সম্পর্কে জানার জন্য এখন আর অন্য কোথাও যেতে হয় না একেবারে ঘরে বসে নিজের মোবাইল ফোন থেকে সকল কিছু আমরা দেখে নিতে পারি প্রয়োজনে অনেক কাগজপত্রের জন্য আবেদন করে আমরা নিতেও পারবো ঘরে বসেই। তাই আর দেরি না করে চলুন এখন আমরা দেখে নেই যে খতিয়ান বের করার লিংক কি।

এবং সেই লিংক দিয়ে আমরা কিভাবে খতিয়ান বের করতে পারব সেই সেবাসমূহ সম্পর্কে এখন আপনাদেরকে আমরা বলে দিব। অনলাইনে ভূমি অফিস থেকে যেকোন কিছু পাওয়ার জন্য অবশ্যই ভূমি অফিসের যে ওয়েবসাইট গুলি আছে সেই ওয়েবসাইট গুলিতে প্রথমে ভিজিট করতে হবে। তারপর সেখান থেকে আপনাকে আবেদনের মাধ্যমে দেখে নিতে হবে আপনার খতিয়ান পর্চা এ জাতীয় জিনিসগুলি।

তবে আপনাদেরকে আমরা এখন এই পোষ্টের মাধ্যমে অবশ্যই যে লিংক থেকে আপনি আপনার খতিয়ান বা অন্যান্য যে সকল কাগজপত্রাদি দেখে নিতে পারেন সে লিংক আপনাদেরকে এই পোস্টের শেষে অবশ্যই দিয়ে দিব। এবং সেই লিঙ্কে ঢুকে আপনি সকল কিছু আপনার প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দেখে নিতে পারেন। তবে এর জন্য আপনাকে অবশ্যই কিছু তথ্য তাদেরকে জানাতে হবে আপনাকেও কিছু তথ্য আগে থেকে জেনে নিতে হবে বুঝে নিতে হবে।

সেদিনকে প্রবেশ করলে আপনাকে অবশ্যই আপনার নিজের বিভাগ নিজের জেলা উপজেলা এবং নিজের অর্থাৎ আপনার জমি যে মৌজাতে রয়েছে সেই মৌজার নাম এখানে দিতে হবে। তারপর জমির শ্রেণী দাগ নম্বর ভূমি মালিকের নাম স্বামীর নাম ইত্যাদি দিতে হবে। তাহলে লিংকটি চলুন দেখে নিতে পারি।
https://www.land.gov.bd/pages/R-S-Khotian