সহকারী খতিয়ান কি

সাধারণ ভাষায় খতিয়ান বলতে গেলে আমরা জমির বিশেষ একটি কাগজের কথা বুঝে থাকি যেখানে ভূমি মালিকের নাম পিতার নাম জাতীয় পরিচয় পত্র নম্বর জমির দাগ নম্বর জমির পরিমাণ মৌজার নাম জমির হিসাব বা অংশ কতখানি এ সকল উল্লেখিত বিশেষ কাগজকেই যদি ভূমি জরিপ থেকে মালিককে দেওয়া হয় তাকে খতিয়ান বলে উল্লেখ করা হয়ে থাকে। অর্থাৎ বলা যায় যে জমির ক্ষেত্রে খতিয়ান অর্থ হল হিসাব। অর্থাৎ যে কোন হিসেবকে খতিয়ান বলা হয়ে থাকে।

মূলত জমির মালিকানা স্বত্ব রক্ষা ও রাজস্ব আদায়ের জন্য জরিপ বিভাগ কর্তৃক প্রতিটি মৌজার জমির এক বা একাধিক মালিকের নাম পিতা বা স্বামীর নাম ঠিকানা দাগ নম্বর সহ ভূমির পরিমাণ হিসাব অংশ না ইত্যাদি বিবরণ সহ যে ভূমি স্বত্ব প্রস্তুত করা হয় তাকেই খতিয়ান বলা হয়ে থাকে। তবে জমিজমার বাইরে ও ব্যবসার কারবারে খতিয়ানের বিশেষ গুরুত্ব রয়েছে। ব্যবসায়িক কারবারে যেকোনো প্রতিষ্ঠান চালানোর জন্য হিসাব নিকাশের অর্থাৎ আয়-ব্যয়ের যে হিসাব করা থাকে তা কেউ খতিয়ান বলা হয়ে থাকে। অর্থাৎ বর্তমান কারবারি জগতে প্রতিষ্ঠানের অধিকাংশ ক্রয় ও বিক্রয় ধারে বা বাকিতে সংগঠিত হয়ে থাকে। তাই প্রতিটি প্রতিষ্ঠান অসংখ্য দেনাদার ও পাওনাদারের সৃষ্টি হয়ে থাকে।

একটি খতিয়ানের সকল দেনাদার বা পাওনাদারের হিসাব সংরক্ষণ করা অনেক ক্ষেত্রেই কঠিন হয়ে পড়ে। বা একটি খতিয়ান বই থাকলে হিসাব নিকাশগুলি পরিচালনার জন্য অনেক সমস্যার সৃষ্টি হয়। সেই সকল সমস্যা সৃষ্টি থেকে লাঘব হওয়ার জন্য বা পরিত্রাণ পাওয়ার জন্য দেনাদার ও পাওনাদার সম্পর্কে জানার জন্য সহকারি বা সাহায্যকারী খতিয়ান সংরক্ষণ করা হয়ে থাকে। আর এটিকে মূলত সাহায্যকারী বা সহকারী খতিয়ান নামে উল্লেখ করা হয়।

তারপরেও আমরা বিভিন্ন অর্থনীতিবিদ এদের মতামত সম্পর্কে দেখে নিতে পারি যে সহকারী খতিয়ান কাকে বলা হয়ে থাকে। প্রথমেই আমরা Harnanson এবং Others-এর মতে সহকারি খতিয়ান বা সাহায্যকারী খতিয়ান কাকে বলে সেটি দেখার চেষ্টা করব। Harnanson এবং Others-এর মতে, “সাধারণ খতিয়ানের নিয়ন্ত্রণ হিসাবের জেরের বিস্তারিত হিসাবসমূহে যে খতিয়ানে লিপিবদ্ধ করা হয় তাকে সাহায্যকারী বা সহকারী খতিয়ান বলে।”

তাহলে আমরা সাধারণ ভাষায় সহকারি বা সাহায্যকারী খতিয়ান সম্পর্কে বলা যায় যে, হিসাব বই বিভক্তি করন পদ্ধতি অনুযায়ী সাধারণ খতিয়ানের ওপর চাপ কমানোর জন্য একই বৈশিষ্ট্যপূর্ণ হিসাব সম্মোহ নিয়ে যে আলাদা খতিয়ান বই তৈরি করা হয় তাহাকেই সহকারি খতিয়ান বা সাহায্যকারী খতিয়ান বলা হয়। তাহলে আমরা দেখলাম যে খতিয়ান শুধুমাত্র জমির ক্ষেত্রেই হয় তা নয় কারণ খতিয়ান শব্দের অর্থই হলো হিসাব। জমি জামার হিসাব খতিয়ান লিপিবদ্ধ থাকে এবং ব্যবসায়িক যে হিসাবগুলি রয়েছে সেগুলি ব্যবসায়িক খতিয়ান বই এ বিদ্যমান থাকে। অর্থাৎ এতদিন পর্যন্ত খতিয়ান বইয়ের মাধ্যমেই ব্যবসায়িক সকল দেনাদার পাওনাদার এর হিসাব গুলি পরিচালিত হয়ে আসছিল। বা এখনো এ সকল খতিয়ান বইয়ের মাধ্যমেই পাওনাদার বা দেনাদারদের হিসাব রাখা হয়।

এবং এই হিসাবগুলি রাখতে আমাদের কখনো একটি বইয়ে সম্পূর্ণ না হলে দুইটি অথবা এর অধিক প্রিয় প্রয়োজন হতে পারে আর এই সকল সাহায্যকারী বা সহকারী খতিয়ান বই নামে পরিচিত হয়। তাই আপনারা দেখলেন খতিয়ান কাকে বলে বা সহকারী খতিয়ান বা সাহায্যকারী খতিয়ান বই কি। খতিয়ান সম্পর্কিত যে তথ্যগুলি রয়েছে সেই তথ্যগুলি সম্পর্কিত বিশদভাবে আপনারা জেনে নিতে পারলেন।

তাই আপনারা আমাদের ওয়েবসাইটটি যদি ভিজিট করেন তাহলে অবশ্যই এ ধরনের জমিজমা সংক্রান্ত সকল বিষয়গুলি আপনাদেরকে বিস্তারিত ভাবে বুঝিয়ে দেওয়া যায়। তাই আপনারা আমাদের ওয়েবসাইটটি ভিজিট করবেন এবং আমাদের পাশে থাকবেন তাহলে আপনার দৈনন্দিন জীবনে যে সকল বিষয়বস্তু প্রয়োজন হবে তা আমাদের ওয়েবসাইট থেকে বুঝে নিতে পারবেন। কারণ আপনার দৈনন্দিন জীবনে প্রয়োজনীয় সকল ধরনের তথ্য আমরা অত্যন্ত নিষ্ঠতার সহিত প্রকাশ করে থাকি।