১নং খাস খতিয়ান কি? কিভাবে দেখবেন

জমিজমার বিভিন্ন কাগজপত্র থাকে এই কাগজপত্র গুলির মধ্যে হল দলিল পর্চা চেক খাজনা রশিদ এছাড়াও আরো কাগজপত্র রয়েছে। খতিয়ান ছাড়াও আরো যে সকল কাগজপত্র যেমন দাগ নকশা ইত্যাদি বিভিন্ন রকমেরই কাগজপত্র রয়েছে যেগুলি আমরা দেখে থাকি। আসলে ১নং খতিয়ানে সরকারের খাস জমি কালেক্টরের নামে এবং ১/১ খতিয়ানে অর্পিত সম্পত্তি কালেক্টরের রেকর্ড করাহয়। ১ ও ১/১ খতিয়ান লেখার পর পরবর্তীগুলো রেওয়াজঅনুযায়ী এ কোন সরকারী/আধা সরকারি বিভাগের নামে আগে বা পরে লেখা যেতে পারে।

সর্বশেষে সাধারণ ভূমি মালিকদের খতিয়ান খুলতে হয়। তাই আমরা দেখতে পেলাম যে আসলে এক নং খাস খতিয়ান হলো সরকারের জমি এই জমিগুলি বিভিন্ন এলাকায় বিভিন্ন জায়গায় কিছু কিছু পরিমাণ জমি সরকারের নিজস্ব নামেই থেকে যায় আর এই সম্পত্তি গুলি হল সরকারের এক নং খাস খতিয়ান জমি হিসেবে পরিচিত। আমরা বেঁচে থাকি সরকারি সম্পত্তি যেগুলি রয়েছে সেগুলো তো আছেই এছাড়াও আমরা দেখি যে কিছু কিছু সম্পত্তি অর্থাৎ ব্যক্তি মালিকানাধীন সম্পত্তির মাঝেই কোন একটা জায়গা রয়েছে যেটি সরকারের নিজস্ব জমি অর্থাৎ এই জমি আমাদের ব্যক্তি মালিকানাধীন কারো জমি নয়। এছাড়াও মালিক বিহীন পরিত্যাক্ত জমিগুলো সরকারের খাস খতিয়ান জমির হিসাবেই পরিচিত হয়ে থাকে।

যেসব জমিগুলো দীর্ঘদিন পরিত্যাক্ত অবস্থায় থাকে অর্থাৎ মালিকানা নেই মালিকানা হয়তো একদিন ছিল কিন্তু ওয়ারিস তার না থাকায় সেই জমিগুলো অন্যজন আর না নেওয়ার কারণে এই জমিগুলো সরকারের খাস খতিয়ানে অর্থাৎ 1 নং খাস খতিয়ানে চলে যায়। তাহলে আমরা বুঝে নিতে পারলাম যে 1 নং খাস খতিয়ান আসলে সরকারি জমি অর্থাৎ খাস জমি এ জমি আমরা যতরা নিজের মনে করি কিন্তু আসলে এটি খাস খতিয়ানের জমি মানে সরকারের জমি।

যদিও বিভিন্ন প্রভাবশালী ব্যক্তিগণ এ সকল জমি জবরদখল করে দীর্ঘদিন নিজের নামে করার চেষ্টা করে বা চাষাবাদ করে যায় কিন্তু এই সকল জমি কখনই তারা নিজের নামে নিতে পারেনা বা সরকারি খাস সম্পত্তি হিসেবেই এগুলি দেখা হয়। স্তরে চিশতিয়াকৃত ভূমি গুলো উত্তর থেকে পশ্চিম কোন বরাবর নাম্বারিং করা হয়ে থাকে। এখানে শুধু খতিয়ান খোলা হয়। এই খতিয়ানের জমির পরিমাণ লেখা হয় না শুধুমাত্র ভুমি মালিকের নাম ঠিকানা লেখা হয়ে থাকে। তবে এসব খতিয়ানে জমির দাগ নম্বর জমির শ্রেণী ইত্যাদিও সন্নিবেশ করা হয়ে থাকে। সরদার আমীন বদর আমিন এর সহায়তায় উপস্থিত ভুমি মালিকদের কাগজপত্র এবং বক্তব্য শুনে থাকেন।

খতিয়ান ধারাবাহিক নম্বর দিয়ে খুলতে হয়। এভাবে বিভিন্ন ধরনের খতিয়ানের মধ্যে অবশ্যই খাস খতিয়ান হলো এক নম্বর। কারণ এক নম্বর খতিয়ান এর জমি সকলেই সরকারের হয়ে থাকে। তাই আমাদের অবশ্যই সকলকেই এই সকল দাগ নম্বর খতিয়ান নম্বর বা কোন জমি কোন খতিয়ানের অংশ এ সকল বিষয় আমাদের জেনে রাখতে হয়। জমি জামাত জটিল বিষয়গুলি যদি আমরা না ঠিক রাখি তাহলে আমাদের জমি অবশ্যই একসময় হাতছাড়া হয়ে যাবে।

বর্তমানে জমি জমার বিষয়গুলি অনেক সেনসিটিভ হওয়ার কারণে সবসময় আমাদের জমির যে বিষয়গুলি রয়েছে অর্থাৎ নিজস্ব নামজারি অথবা দাগ নম্বর পর্চা খতিয়ান খতিয়ান আবার যেগুলি আছে আরএস খতিয়ান বিএস খতিয়ান এইসব খতিয়ানগুলি নিজের কাছে রেখে দেওয়াই বেশি ভালো। কারণ কখন কোন জিনিস প্রয়োজন হয় সেটি বোঝা যায় না কিন্তু জমি জমার বিষয়গুলি জটিল হওয়ার কারণে সকল কাগজপত্র অর্থাৎ জমি-জমার সকল কাগজপত্র নিজের কাছে জোগাড় করে রাখার সবচাইতে উত্তম। তাই আপনারা বা আপনাদের যতোটুকুন জমি থাকুক না কেন সকল জমির কাগজপত্র নিজের দখলে রেখে অবশ্যই কাগজপত্র গুলি ঠিক রাখবেন বলেই আশা রাখি। তাহলে আজকে আমরা যে আলোচনা করলাম সে আলোচনা থেকে দেখে নিতে পারলাম যে এক নং খাস খতিয়ান কি।